কলসিন্দুরের ফুটবল কন্যা সাবিনার মৃত্যু

কলসিন্দুরের ফুটবল কন্যা সাবিনার মৃত্যু

স্টাফ রিপোর্টার: কলসিন্দুরের ফুটবল কন্যা সদ্য অনুর্দ্ধ ১৪ ক্যাম্প থেকে ফেরা সাবিনা আক্তার মৃত্যুবরণ করেছে। সে কয়েকদিন ধরে জ্বরে ভূর্গছিল। আজ মঙ্গলবার বিকাল ৩টায় তাকে ধোবাউড়া হাসপাতালে নেওয়ার পর সে মারা যায়। ঘটনা শুনার পরপরই দ্রুত হাসপাতালে ছুটে যান ধোবাউড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: মাহদী হাসান। শিক্ষক-শিক্ষার্থীর কান্নায় ভারী হয়ে উঠে হাসপাতালের পরিবেশ।

হালুয়াঘাট-ধোবাউড়া আসনের সাংসদ মি: জুয়েল আরেং এমপি সাবিনার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেন।

ধোবাউড়া উপজেলা চেয়ারম্যান ও কৃষকলীগ সভাপতি হাজ্বী মোহাম্মদ মজনু মির্ধা, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: মাহদী হাসান, উপজেলা আওয়ামীলীগ এর সাধারণ সম্পাদক প্রিয়েতাষ বিশ্বাস, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ হেলাল উদ্দিনসহ অনেকেই নিহত সাবিনার বাড়ীতে গিয়ে পরিবার ও আত্বীয় স্বজন এবং শোভাকাঙ্খীদের সাথে সহমর্মিতা প্রকাশ করেন।

সাবিনার বাবা মরহুম সেলিম মিয়া ও মা ফজিলা খাতুন। তিন ভাই-বোন এর মধ্য সাবিনা দ্বিতীয়। সাবিনার গ্রামের বাড়ি ২ নং গামারীতলা ইউনিয়নের দক্ষিন রানীপুর গ্রামে। সাবিনার অকাল মৃত্যুতে কলসিন্দুর সহ ধোবাউড়া উপজেলার সর্বস্তরের ফুটবল প্রেমীদের মধ্যে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। সাবিনার নামাজে জানাযা আগামীকাল সকাল ১০ টায় কলসিন্দুর মাদ্রাসা মাঠে অনুষ্ঠিত হবে।

পিতৃহীন সাবিনার পরিবারে মা, এক ভাই ও দুইবোন। হতদরিদ্র পরিবারে একমাত্র ভাই অটো চালক। জমিজমা নেই বললেই চলে। খেলার পারদর্শিতায় কিছুটা আয় আসতো যা দিয়ে কোন রকমে চলছিল সংসারটি। সে ছিল খুব সহজ সরল স্বভাবের।সাবিনা কলসিন্দুর স্কুল এন্ড কলেজের নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী।

কলসিন্দুর স্কুল এন্ড কলেজের প্রভাষক এ.বি সিদ্দিক বলেন, সাবিনা তার সমাজ, দেশ ও জাতিকে নিজের সাধ্যমতো দিয়েছে। নেপাল, তাজিকিস্তান, ভারত সহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে খেলে বিজয়ী হয়ে ময়মনসিংহের ধোবাউড়া ও কলসিন্দুরকে নতুন ভাবে পরিচয় করিয়ে অন্য রকম এক উচ্চাসনে আসীন করেছে। তার পথচলাকে অনুসরণ করে কলসিন্দুর স্কুল এন্ড কলেজে এর অনুজ দল আবারও ৪৬ তম গ্রীষ্ম কালীন ফুটবলে জাতীয় ভাবে (২০১৭) শিরোপা অর্জন করেছে।

কোন মন্তব্য নেই

Leave a Reply